জনগনের মধ্যে ঐক্য গড়তে হলে আগে রাজনৈতিক দলগুলোর মধ্যে ঐক্য গড়ে তুলতে হবে বলে মন্তব্য করেছেন সাবেক রাষ্ট্রপতি ও বিকল্প ধারার সভাপতি অধ্যাপক ডা. বদরুদ্দোজা চৌধুরী

সোমবার (২৬ ফেব্রুয়ারি) বিকেলে জাতীয় প্রেসক্লাবের ভিআইপি লাউঞ্চে জাতীয় ঐক্য প্রকিয়া আয়োজিত “গণতন্ত্রের সংগ্রাম, রাষ্ট্রভাষার আন্দোলন ও আমাদের স্বাধীনতা ” শীর্ষক আলোচনায় তিনি এসব কথা বলেন।

বি চৌধুরী বলেন, দেশের স্বার্থে সবাইকে নিয়ে যদি কেউ ঐক্য করতে চায় তাহলে আমি রাজি আছি। তবে কাউকে বাদ দেয়া যাবে না। আমরা কোথায় আছি কী পর্যায়ে আছি চিন্তা করতে হবে। আমদের দেশের যেই অবস্থা সে বিষয়ে আমাদের চিন্তা করতে হবে। জনগনের কাছে যেতে হবে। তাদের সাথে নিয়ে একটি ঐক্য গড়ে তুলতে হবে।

তিনি বলেন, যখন কোনো সরকার দেশ চালাতে পারে না তখন সেই সরকারকে সরিয়ে দেওয়ার একটা পদ্ধতি আছে। সেটা হচ্ছে নির্বাচন। কিন্তু আমাদের দেশে ক্ষমতায় থাকলে গুম, খুন, হত্যা সবকিছুই করা সম্ভব। দুই কোটি টাকার বিচার করবেন আর হাজার কোটি টাকার কোনোকিছু হবে? ক্ষমতায় আছেন সবকিছুই করতে পারবেন।

জেএসডির সভাপতি আ.স.ম আব্দুর রব বলেন, আমরা পাকিস্তানে আন্দোলন করেছি। সেই পাকিস্তানকে ভেঙ্গে দিয়েছি। তখনও পুলিশের লাঠি খেয়েছি। মামলা হয়েছে। গ্রেপ্তারও হয়েছি। আমি অন্যায় করলে মামলা হবে। পুলিশ গ্রেপ্তার করবে এটাই স্বাভাবিক। কিন্তু রাস্তায় ছাত্রদের পিঠের উপর বুট দিয়ে চেপে ধরা, এরকম কোনো নির্যাতন করার কোনো মানে হয়না। আন্দোলন ছাড়া কোন স্বৈরাচারের পতন হয়নি। হবেও না। তাই সবাই রাজপথে নামলে আমিও নামবো বলে জানান তিনি।

কৃষক-জনতা শ্রমিকলীগের সভাপতি বঙ্গবীর কাদের সিদ্দীকি বলেন, আজ থেকে ১০/১২ বছর থেকে প্রেসক্লাবের মত শিতাতপ নিয়ন্ত্রিত রুমে আমাদের ঐক্য হয়েছে এবং এখনও হচ্ছে কিন্তু এ ঐক্য দিয়ে কোনো কিছু হবে না। আমরা যদি রাস্তায় ঐক্যবদ্ধ্য হয়ে নামতে পারি তাহলে একটা পরিবর্তন হতে পারে। বঙ্গবন্ধুর হত্যার বিচার ঠিকমত হয়নি বলে মন্তব্য করে তিনি বলেন, জিয়াউর রহমানকে উপ-সেনা প্রধান থাকার কারনে বঙ্গবন্ধুর খুনি বলা হবে। অন্য দিকে সেসময়ের সেনা প্রধানকে কিছুই বলবেন না তাকে মনোনয়ন দেবেন এটা কেমন বিচার? ওই সময় যারা প্রশাসনে ছিল এবং যারা এই হত্যাকান্ডে যারা সহযোগীতা করেছিলেন তাদের সবার বিচার করতে হবে।

সভাপতির বক্তব্যে ড. কামাল হোসেন বলেন, আমরা কাউকে নির্মূল করতে চাইনা। আমরা চাই যেই সপ্ন নিয়ে মুক্তিযুদ্ধে শহীদরা অংশ নিয়েছিলেন সেই সপ্নের বাস্তবায়ন করতে। জণগনের মালিকায় একটি বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠিত করাই আমাদের লক্ষ। এজন্য জাতি ও রাজনৈতিক দল এবং প্রগতিশীল, বাম ও গণতান্ত্রিক শক্তিগুলোকে এক হয়ে কাজ করতে হবে বলে জানান তিনি।

জাতীয় ঐক্য প্রক্রিয়ার চেয়ারম্যান ও গণফোরামের সভাপতি ড. কামাল হোসেনের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় বক্তব্য রাখেন যুক্তফ্রন্টের চেয়ারম্যান ও বিকল্পধারার সভাপতি একিউএম বদরুদ্দোজা চৌধুরী, জেএসডি`র সভাপতি আ.স.ম আব্দুর রব, কৃষক শ্রমিক জনতালীগের সভাপতি বঙ্গবীর কাদের সিদ্দীকি,বাসদের সাধারণ সম্পাদক খালেকুজ্জামান বিকল্প ধারার মহাসচিব মেজর (অবঃ) এম এ মান্নান, গণফোরামের নির্বাহী সভাপতি সুব্রত চৌধুরী প্রমুখ।

NO COMMENTS

LEAVE A REPLY